Skip to content Skip to footer

Come back to Islam

আসসালামু আলাইকুম ।

আমি ইউটিউবে ভিডিও বানানো বন্ধ করে দিচ্ছি ।

আপনাদের সাথে কিছু কথা শেয়ার করতে চাই ।

আমার একটা ইচ্ছা ছিল যে, ইউনিভার্সিটিতে পড়াশুনার পাশাপাশি শখের বশে করা এই ইউটিউবিং টাকে আরো উন্নত করে বাংলাদেশের নামকরা ইউটিউবারদের একজন হওয়া । গত ৩ বছরেরও বেশি সময়ে এসব করে যা অভিজ্ঞতা লাভ করেছি, এই সময়টা হয়তো আমার কেবল শুরু । অনেক সুযোগ হাতের নাগালে আসছে । আমার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসকে নিয়েও হাই লেভেলের অনেক কিছু করার প্ল্যান ছিল । কিন্তু আমি আর ঐপথে হাঁটতে চাই না । আমি আমার এই তথাকথিত ইউটিউব ভিডিও বানানো বন্ধ করে দিচ্ছি ।

আমি জানি, আমার কোনো ভিডিওতেই কোনো নেতিবাচক কিছু ছিল না (আধুনিক যুগের প্রেক্ষাপটে) । কিন্তু আমি যেসব ট্রাভেলিং ভ্লগ, সোশ্যাল অ্যাওয়ারনেস, শর্ট-ফিল্ম বা ফানি ভিডিও বানাতাম, তার প্রত্যেকটাতেই কোনো না মিউজিক বা ব্যাকগ্রাউন্ড সং আমি যুক্ত করতাম । আর মিউজিক ভিডিওতে তো গান ছিলই পুরোটা জুড়ে ।

মিউজিক এখন আমাদের ‘আধুনিক’ জীবনে এমনভাবে জড়িয়ে গেছে যে, ইসলামের দৃষ্টিতে যে এটা হারাম, এটা হয়তো আমরা ভুলেই গিয়েছি অথবা জানার পরেও আমরা এটা নিয়েই চর্চা করছি অনেক ।

আমার ভিডিও গুলোয় মিউজিক থাকা, কাউকে বিদ্রূপ করে রোস্টিং/রিয়েকশন দেওয়া, অহেতুক ফানি ভিডিও, ছেলে-মেয়ে ফ্রি মিক্সিং (ইনডাইরেক্টলি) প্রভৃতির মাধ্যমে কোনো না কোনোভাবে হারাম জিনিসকে আমি প্রোমোট করে ফেলেছি । এজন্য আমি সত্যিই অনুতপ্ত এবং আল্লাহর কাছে ক্ষমাপ্রার্থী ।

আমার পরিচয়, আমি একজন মুসলিম । কিন্তু আমি যেভাবে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ‘তথাকথিত স্টাইলিশ’ চলাফেরা, কাজকর্ম করছি, তাতে নিজেকে কতটুকু মুসলিম হিসেবে আল্লাহর কাছে প্রমাণ করতে পেরেছি ?

আমি একসময় Linkin Park এর ডাই-হার্ড ফ্যান ছিলাম । আপনারা অনেকেই হয়তো আমার চেয়ে বেশি মিউজিক শোনা বা মুভি দেখেন নি । ডিপ্রেশনে পড়লে মন ভাল করার জন্যে বা অবসরে আমরা শুধু এসব নিয়েই মাতামাতি করি ।

বর্তমান যুগে এই কাজগুলোকে সমাজের অনেকের সাথে আমরা ইউটিউবাররা এমনভাবে নরমালাইজ করে ফেলেছি, এগুলো যে ইসলামে হারাম, তা অনেকেই বুঝতেও পারি না । এর দায়ভার অনেকাংশে আমাদের ।

হারাম ইজ হারাম । সেটা আমার যতই শখের বা ভাল লাগার বিষয় হোক না কেনো । আমার সৃষ্টিকর্তা যা করতে নিষেধ করেছেন, সেই কাজ কখনোই আমার মঙ্গল বয়ে আনবে না, তাই আমি এভাবে আর চলতে চাই না । আমার মৃত্যুর পরে আমার কৃতকর্মের জবাব আমাকেই দিতে হবে । অন্য কেউই তো আমার হয়ে জবাব দিবে না । জাহান্নামের আগুন সহ্য করার ক্ষমতা আমার নেই ।

আমি আমার ইউটিউব চ্যানেল আর ফেইসবুক পেইজ থেকে আগের সব ভিডিও ডিলিট করে দিচ্ছি । আমার আগের ভিডিও গুলো থেকে যদি কেউ মনে কোনো আঘাত পেয়ে থাকেন, তাহলে প্লিজ আমাকে মাফ করে দিবেন ।

হারাম কাজকে প্রোমোট করে দুনিয়ায় এসব নেইম-ফেইম আমি চাই না । শুধু নামে মুসলিম না হয়ে, কাজে মুসলিম হতে চাই । আমার মত একজন ছোটখাটো মানুষকে আল্লাহ যেই ক্ষুদ্র প্রতিভাটুকু দিয়েছেন, সেটিকে যদি ইসলামের প্রসারে কাজে লাগাতে পারি, তাহলে একদিন না একদিন আবারও ইউটিউবে ফিরে আসবো, ইনশাআল্লাহ ।

টেলিভিশন মিডিয়া, সোশ্যাল মিডিয়াতে (ফেসবুক, ইউটিউব, টিকটক, লাইকি) নিজেদের ‘সেলিব্রিটি’ হিসেবে গড়তে আমরা যুবসমাজ এমন খারাপভাবে আসক্ত হয়ে পড়ছি, আখিরাতে এর পরিণাম যে কত ভয়াবহ হবে তা নিয়ে আমরা চিন্তাও করছি না ।

আমরা এখনকার ছেলে-মেয়েরা একটু বেশিই স্রোতে গা ভাসাই । আপনাদের প্রতি আমার একটা রিকুয়েস্ট থাকলো, বিশেষ করে যারা এখনো আমার মত তরুণ আছেন, প্লিজ আপনারা আপনাদের জীবনটাকে নিয়ে একটু ভাবুন, আমরা দুনিয়ায় কীসের জন্য এসেছি । আপনি-আমি যেভাবে চলছি, এটা সঠিক পথ নয় ভাই/আপু । “প্যারা নাই, জাস্ট চিল” বলে দুনিয়ায় আপনার একটা মাত্র জীবনকে অবহেলা করে কাটিয়ে দিবেন না ।

আমি আপনাদের সবার জন্য দুআ করছি । ভাল থাকবেন সবাই । আমার জন্য দুআ রাখবেন যেন ইসলামের প্রকৃত আদর্শ নিয়ে চলতে পারি । আল্লাহ হাফেজ ।

~Sohaib UL Hasan

Leave a Reply